ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ সিলেট জেলার কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ (০৯ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার, দুপুর ২টায় সিলেট নগরীর বন্দরবাজারস্থ দলীয় কার্যালয়ে পৃথক দুই অধিবেশনে এ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়।

ছাত্র জমিয়ত সিলেট জেলার সদ্য বিদায়ী সভাপতি ফরহাদ আহমেদের সভাপতিত্বে, কেন্দ্রীয় ও সিলেট বিভাগীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক হোসাইন আহমেদ ও সিলেট জেলা সদস্য সচিব লুকমান হাকিমের সঞ্চালনায় কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সভাপতি মাওলানা মুশাহিদ দয়ামীরি। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি এখলাসুর রহমান রিয়াদ।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে ছাত্র জমিয়ত সভাপতি বলেন, ছাত্র জমিয়ত এখন নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। শতবর্ষের এই সংগঠনকে জনগণ থেকে দূরে রাখার পায়তারা করছে ক্ষমতাসীনরা। ক্ষমতাসীনদের এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ছাত্র জমিয়তকে সফল হতেই হবে। এজন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ-মোজাহাদা, মেধা, অর্থ, শ্রম দিয়ে সংগঠনকে এগিয়ে নিতে হবে।

তিনি বলেন, জমিয়তের সহযোগী সংগঠন হিসেবে ১৯৯২ সালে ছাত্র জমিয়তের পথচলা শুরু হয়। দীর্ঘ ৩০ বছরের এই পথচলায় আদর্শিক কিংবা রাজনৈতিক পথ বিচ্যুতি এক মুহুর্তের জন্যেও হয়নি ছাত্র জমিয়তের। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই মুরুব্বিদের পরামর্শে পরিচালিত হচ্ছে ছাত্র জমিয়ত।

তিনি আরো বলেন, আজ স্যাকুলারিজম, নাস্তিক্যবাদ ও হিন্দুত্ববাদী আগ্রাসন এতটাই মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে যে, পাহাড়ের চূড়ায় আজান দেয়ার কারণে দুই মাদ্রাসা ছাত্রকে আটক করেছে প্রশাসন। এটা কীসের আলামত? আমরা এমন নেক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই এবং তাদের মুক্তির দাবী জানাই। সেইসাথে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে যেসকল নিরপরাধ উলামায়ে কেরামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের দ্রুত মুক্তি দাবী করছি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জমিয়তের কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব মাওলানা খলিলুর রহমান, ছাত্র জমিয়তের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা নজরুল ইসলাম, সিলেট জেলা জমিয়তের সাংগঠনিক সম্পাদক নূর আহমদ কাসেমী, কেন্দ্রীয় ছাত্র জমিয়তের সহ-সভাপতি আহমদুল হক উমামা, সিলেট মহানগর ছাত্র জমিয়তের সভাপতি লুৎফুর রহমান প্রমুখ।

কাউন্সিল অধিবেশনে উপস্থিত কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে আব্দুল হামিদকে সভাপতি, লুকমান হাকিমকে সাধারণ সম্পাদক এবং মুশতাক আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ২০২১-২২ সেশনের জন্য সিলেট জেলা ছাত্র জমিয়তের ২৫ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় সভাপতি এখলাসুর রহমান রিয়াদ।