30 C
Dhaka
Monday, March 8, 2021

শ্বশুর বাড়ির ইফতারি নামক জুলুমিকে বর্জন করুন:স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রফিক আলী

- Advertisement -
- Advertisement -

চলমান২৪ঃ বিশ্বনাথ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা,বিশিষ্ট সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী মো: রফিক আলী বলেন, রমজানের কিছুদিন পুর্বে আমার ছোট ভাইয়ের বিবাহ সম্পন্ন হয়। বিয়ের পর প্রথম রমজান মাস তালতো ভাইদের বললাম ইফতারি দেওয়া লাগবেনা, ইফতারি দেবো আমরা,তালতো ভাইয়েরা ইফতারি দেওয়ার জন্য পীড়াপীড়ি করলেও আমি কোনভাবেই তা মেনে নেইনি। তাই ছোট ভাইকে দিয়ে তার শশুর ভাড়িতে ইফতারি পাঠিয়ে দিলাম।এটাই নিয়ম হওয়া উচিৎ মেয়ের জামাই তার শ্বশুর,শাশুড়ীকে ইফতারি দিবে।

তিনি আরো বলেন,নতুন মেয়ের বিয়ে হয়েছে,মধ্যবিত্ত পরিবার বাবার কাঁদে এখনও মেয়ের বিয়ের ঋণের বোঝা, রোজার প্রথম দিন বুঝি মেয়ের বাড়ীতে ইফতারি নিয়ে যেতে হয়, তার পরে আবার দিতে হয় বড় ইফতারি, যেমন তেমন করে দিলে চলবেনা, মেয়ের শ্বশুরের পঞ্চায়েত অনেক বড়ো সবকিছু মিলিয়ে একমণ পাঠাইতেই হবে,তাও আবার উন্নতমানের দোকান থেকে, নইলে মেয়ের মুখ থাকবেনা,মনে শ্বশুরালয়ের চোদ্দগুষ্টি মিষ্টি জিলাপি খায় নি!

ইফতারি শেষ এখন আম কাঠাল আর আনারস দেবার পালা,৫০টা কাঁঠাল,২০ কেজি আম,১৫ হালি আনারস আর সাথে চিড়া মুড়ি থাকতে হবে, অদের চোদ্দগুষ্টি আম,কাঁঠাল খায়নি খায়েশ মেটাই খাবে।
এ কেমন বর্বরতা ইফতারি আর আম কাঠালের নামে একজন দিনমজুর বা মধ্যবিত্ত পরিবারের উপর জুলুম! এ রেওয়াজ বন্ধ করতে হবে।

কেউ কেউ আবার বলেন ইফতারি আর আম কাঁঠাল প্রদান আমাদের সামাজিক সম্প্রীতিকে আরো দৃঢ় করে আর আতিথেয়তা মধুর হয়,ভাই গাছে আম কাঁঠাল ধরছে,দুই চারটা নিয়া দিয়া আসেন,ইফতারি দিবেন?? ঘরে হাত দিয়ে কিছু বানিয়ে আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়ে সবাই মিলে একসাথে খেয়ে আসেন।

ট্রাক ভর্তি আম কাঁঠাল কেন আর পাঁচমণ মিষ্টি মিঠাই কেন??আমিতো দেখি অনেকে এই আম কাঠাল দেবার পরে খাবার লোক না পেয়ে গরু ছাগলের খাবার দেয়,অনেকে ঘরে মিষ্টি দেবার পরে ২/৩ দিন রেখে ফেলা দেয়া হয়।

সামাজিক মেলবন্ধন বা আতিয়েতার সম্পর্ক দৃঢ় করতে মেয়ে/বোনের ঠিকমতো খোজ খবর নেন,বাড়ীতে পিঠা বানিয়ে নিয়ে যান কিন্তু আল্লাহ্-র ওয়াস্তে এই যৌতুক প্রথা,এই গরীব ও মধ্যবিত্তের উপর জুলুম বন্ধ করুন,নতুন প্রজন্মরের সবাই ঘরে ঘরে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করুন।

আজ থেকে ইফতারি ও আম,কাঠালের বিপক্ষে অবস্থান নিলাম,আপনিও নিন,এমন করে এক সময় আমরা সামাজিক এই ব্যাধিকে সমাজ থেকে চিরতরে উচ্ছেদ করতে পারবো এটাই আমার বিশ্বাস।

- Advertisement -

Latest news

হতাশ হয়ে পাকিস্তানে ফেরত যাচ্ছেন নাগরিকত্বের আশায় ভারতে আসা হিন্দু ও শিখরা!

আশাহত হয়ে পাকিস্তান ফিরে যাচ্ছেন মোদি সরকারের আমলে ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায় পাকিস্তান থেকে আসা হিন্দু ও শিখ শরণার্থীরা। করোনার কারণে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি ও...
- Advertisement -

যে গাছগুলোতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

যেসব গাছের এক বা একাধিক অংশ প্রাণীদের ক্ষেত্রে দরকারি ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয় তাকে ঔষধি গাছ বলে। গাছ যদি হয় বিভিন্ন রোগের ওষুধ, তখন...

হাজার কোটি টাকা দিলেও আর হিজাব ছাড়ব না : হালিমা ইডেন

ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে আপস করার জন্য চাপ অনুভব করার প্রেক্ষাপটে মুসলিম মডেল হালিমা ইডেন ফ্যাশন শো থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। বুধবার ২৩ বছর...

ধর্ষকদের শাস্তি পুরুষাঙ্গ অকেজো, ইমরান খানের অনুমোদন!

ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড এবং রাসায়ানিক প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ অকেজো (খোজাকরণ) করে দেয়ার বিধান রেখে দুটি অধ্যাদেশ অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ। মঙ্গলবার...

Related news

হতাশ হয়ে পাকিস্তানে ফেরত যাচ্ছেন নাগরিকত্বের আশায় ভারতে আসা হিন্দু ও শিখরা!

আশাহত হয়ে পাকিস্তান ফিরে যাচ্ছেন মোদি সরকারের আমলে ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায় পাকিস্তান থেকে আসা হিন্দু ও শিখ শরণার্থীরা। করোনার কারণে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি ও...

যে গাছগুলোতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

যেসব গাছের এক বা একাধিক অংশ প্রাণীদের ক্ষেত্রে দরকারি ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয় তাকে ঔষধি গাছ বলে। গাছ যদি হয় বিভিন্ন রোগের ওষুধ, তখন...

হাজার কোটি টাকা দিলেও আর হিজাব ছাড়ব না : হালিমা ইডেন

ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে আপস করার জন্য চাপ অনুভব করার প্রেক্ষাপটে মুসলিম মডেল হালিমা ইডেন ফ্যাশন শো থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। বুধবার ২৩ বছর...

ধর্ষকদের শাস্তি পুরুষাঙ্গ অকেজো, ইমরান খানের অনুমোদন!

ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড এবং রাসায়ানিক প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ অকেজো (খোজাকরণ) করে দেয়ার বিধান রেখে দুটি অধ্যাদেশ অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ। মঙ্গলবার...
- Advertisement -