31 C
Dhaka
Thursday, April 15, 2021

বদরের ঈমান দীপ্ত চেতনায় আমাদেরকে উজ্জীবিত হতে হবে :এখলাসুর রহমান

- Advertisement -
- Advertisement -

ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এখলাসুর রহমান রিয়াদ এক বিবৃতিতে বলেন আজ ১৭ রামজান ঐতিহাসিক বদর দিবস। হিজরি দ্বিতীয় সনের সতেরো রামজান মদীনা থেকে প্রায় ৮০ মাইল দূরে বদর প্রান্তরে সংঘটিত হয়েছিল ঈমান ও কুফরের যুদ্ধ। ঐতিহাসিক সেই বদর প্রান্তরে কাফেরদের বিশাল সুসজ্জিত বাহিনীর বিপক্ষে ঈমানদারদের ছোট একটি দলের প্রত্যক্ষ সশস্ত্র লড়াই ছিল সেদিন। তাতে মানুষের সব ধারণা নাকচ করে দিয়ে প্রায় উপকরণহীন ছোট দলটিকে জয়ী করেন মহান রাব্বুল আলামিন। সত্য-মিথ্যার চিরন্তন দ্বন্দ্বের ইতিহাসে সংযেজিত হয় নতুন অধ্যায়।

তিনি বলেন,মহানবী সা. মদীনায় হিজরত করে যাওয়ার দ্বিতীয় বছরে সশস্ত্র জিহাদের অনুমতি নিয়ে নাজিল হয় কুরআন মজিদের কয়েকটি আয়াত। যেমন সূরা হজের ৩৭ নং আয়াতে বলা হয়েছে- “যাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালানো হচ্ছে, তাঁদেরকে (মুসলিম যুদ্ধাদের) অনুমতি দেয়া হলো এ জন্য যে, তাঁরা নির্যাতিত হয়েছে। আর আল্লাহ তাঁদের সাহায্য করতে সক্ষম। সাহাবায়ে কেরামদেরকে নিজেদের বাড়িঘর থেকে বিতাড়িত করা হয়েছিল অন্যায়ভাবে শুধু এ কারণে যে, তাঁরা বলে আমাদের প্রভু আল্লাহ।”

ছাত্র জমিয়তের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলেন, এভাবে সশস্ত্র পন্থায় কাফেরদের প্রতিরোধ করার অনুমতি লাভের পর আল্লাহর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম প্রস্তুত হলেন। জিহাদ শুরুর আগে আল্লাহর নবী দোয়া করেছিলেন, হে আল্লাহ, তুমি যদি চাও দুনিয়াতে তোমার ইবাদত করার কেউ না থাকুক, তাহলে এই ক্ষুদ্র দলটিকে নিশ্চিহ্ন করে দাও! আল্লাহ তা চাননি। আল্লাহ তায়ালার অভিপ্রায় ছিল বাহ্যিক ও উপকরণগত শক্তির তুচ্ছতা প্রমাণ করা। তাই প্রায় নিরস্ত্র মুষ্টিমেয় মুজাহিদদের কাছে পরাজিত হয় সুসজ্জিত বিশাল বাহিনী। কুরাইশদের দর্প চূর্ণ হলো। কাফেরদের পক্ষে নিহত হলো ৭০ জন। বন্দী হয় আরো ৭০ জন। আর মুসলমানদের মধ্যে শহীদ হন মাত্র চৌদ্দ জন। যুদ্ধের এ ধরণের ফলাফল ছিল সম্পূর্ণ অকল্পণীয়। কিন্তু তা ছিল আল্লাহর কুদরতের প্রমাণ।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে আমরা করোনা ভাইরাস নামের যে গজবে দিনযাপন করছি এ থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে আল্লাহর দিকে ফিরে যেতে হবে! বদরী সাহাবীদের ঈমানদীপ্ত চেতনায় আমাদেরকে উজ্জীবিত হতে হবে! আর মহানবী যেমন আল্লাহ দরবারে সাহায্য চেয়েছিলেন ঠিক তেমনিভাবে আমাদেরও একমাত্র খোদার দরবারেই সাহায্য চাইতে হবে। এটা সত্যি হয়ে গেছে কোনো বিজ্ঞানই হটাৎ দানবের মতো থাবা দেয়া এই মহামারিতে এখনও মুক্তি দিতে পারেনি! বদর যুদ্ধের চেতনা, জাগ্রত হোক সকল মুসলমানের মনোজে এবং প্রতিটি মুমিনের অন্তরে।

মুফতী এখলাছুর রহমান রিয়াদ
ভারপ্রাপ্ত সভাপতি,ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ

- Advertisement -

Latest news

হতাশ হয়ে পাকিস্তানে ফেরত যাচ্ছেন নাগরিকত্বের আশায় ভারতে আসা হিন্দু ও শিখরা!

আশাহত হয়ে পাকিস্তান ফিরে যাচ্ছেন মোদি সরকারের আমলে ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায় পাকিস্তান থেকে আসা হিন্দু ও শিখ শরণার্থীরা। করোনার কারণে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি ও...
- Advertisement -

যে গাছগুলোতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

যেসব গাছের এক বা একাধিক অংশ প্রাণীদের ক্ষেত্রে দরকারি ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয় তাকে ঔষধি গাছ বলে। গাছ যদি হয় বিভিন্ন রোগের ওষুধ, তখন...

হাজার কোটি টাকা দিলেও আর হিজাব ছাড়ব না : হালিমা ইডেন

ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে আপস করার জন্য চাপ অনুভব করার প্রেক্ষাপটে মুসলিম মডেল হালিমা ইডেন ফ্যাশন শো থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। বুধবার ২৩ বছর...

ধর্ষকদের শাস্তি পুরুষাঙ্গ অকেজো, ইমরান খানের অনুমোদন!

ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড এবং রাসায়ানিক প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ অকেজো (খোজাকরণ) করে দেয়ার বিধান রেখে দুটি অধ্যাদেশ অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ। মঙ্গলবার...

Related news

হতাশ হয়ে পাকিস্তানে ফেরত যাচ্ছেন নাগরিকত্বের আশায় ভারতে আসা হিন্দু ও শিখরা!

আশাহত হয়ে পাকিস্তান ফিরে যাচ্ছেন মোদি সরকারের আমলে ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায় পাকিস্তান থেকে আসা হিন্দু ও শিখ শরণার্থীরা। করোনার কারণে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি ও...

যে গাছগুলোতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

যেসব গাছের এক বা একাধিক অংশ প্রাণীদের ক্ষেত্রে দরকারি ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয় তাকে ঔষধি গাছ বলে। গাছ যদি হয় বিভিন্ন রোগের ওষুধ, তখন...

হাজার কোটি টাকা দিলেও আর হিজাব ছাড়ব না : হালিমা ইডেন

ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে আপস করার জন্য চাপ অনুভব করার প্রেক্ষাপটে মুসলিম মডেল হালিমা ইডেন ফ্যাশন শো থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। বুধবার ২৩ বছর...

ধর্ষকদের শাস্তি পুরুষাঙ্গ অকেজো, ইমরান খানের অনুমোদন!

ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড এবং রাসায়ানিক প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ অকেজো (খোজাকরণ) করে দেয়ার বিধান রেখে দুটি অধ্যাদেশ অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ। মঙ্গলবার...
- Advertisement -