জাতীয় সংসদ ভবন এলাকা থেকে জিয়াউর রহমানের কবরসহ জাতীয় সংসদের মূল নকশার বাইরে যেসব স্থাপনা রয়েছে তা অপসারণ করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

আজ শনিবার সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ আহ্বান জানান।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী বলেন, জাতীয় সংসদ চত্বরে মূল নকশার বাইরে জিয়ার কবরসহ যেসব স্থাপনা হয়েছে। এখানে আরো কিছু কবর দেওয়া হয়েছে। সেগুলো অপসারণের অনুরোধ করছি।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে জিয়া ও তার তাবেদাররা সবাই মিলে যে বাকশালকে গালিতে পরিণত করেছিল। বস্তুত বাকশালের মাধ্যমে কোনো রাজনৈতিক দলকে বন্ধ করা হয়নি। রাজনৈতিক দলের কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত করে জাতীয় দল গঠন করা হয়েছিল। আওয়ামী লীগেকেও তখন স্থগিত করা হয়ছিল। বাঙালির মুক্তি ও শোষিতের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য যে কর্মসূচি দেওয়া হয়েছিল তাছাড়া বাংলার মানুষের মুক্তি আসতে পারে না। তা বিগত দিনে প্রমাণিত হয়েছে।

আজকের প্রধানমন্ত্রী সেই অর্থনীতিতে পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধার মুক্তিযুদ্ধের সময় দায়িত্ব পালন ও অভিজ্ঞতা ১০ থেকে ২০ মিনিট রেকর্ড করার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এগুলে আমরা স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ করব।