31 C
Dhaka
Thursday, April 15, 2021

চেয়ারম্যানের বাসার গৃহকর্মীকে ‘ধর্ষণের পর হত্যা’ করে আত্মহত্যা বলে প্রচার!

- Advertisement -
- Advertisement -

‘ধর্ষণের পর হত্যার’ ঘটনাকে আত্মহত্যা বলে চালাতে নিহত কিশোরীর মাকে জোর করে স্বাক্ষর করানোর অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে অভিযোগ অস্বীকার করেন মোহনগঞ্জ থানার ওসি।

গত ৯ মে গৃহকর্মী মারুফা আক্তার (১৪) মারা যাওয়ার দুদিন পর ১১ মে হত্যা মামলা নেয় মোহনগঞ্জ থানার পুলিশ। মামলার প্রেক্ষিতে রাতেই অভিযুক্ত নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার ৬ নং সিংধা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চনকে আটক করে ১২ মে কোর্টে সোপর্দ করেছে পুলিশ।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইউপি চেয়ারম্যান কাঞ্চনের মোহনগঞ্জ বাসায় কিশোরী গৃহকর্মী মারুফা আক্তার (১৪) আত্মহত্যা করার প্রচার চালিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যান চেয়ারম্যান নিজেই।

খবর পেয়ে পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এসময় তার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন দেখে স্থানীয় ও স্বজনদের মাঝে সন্দেহের সৃষ্টি হয়।এ ঘটনার পর ধর্ষণ ও হত্যা মামলা না নিয়ে উল্টো মেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে সই নেয়ার চেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ করেন মারুফার মা আকলিমা আক্তার। তিনি আরো বলেন তাকে উল্টো পুলিশ পাহারায় সারারাত রেখেছে।

তার মেয়ে শিশুটিকে পাশবিক নির্যাতন করে মারার উপযুক্ত বিচার চেয়েছেন তিনি। চেয়ারম্যান একাধিক মানুষ নিয়ে এই নির্যাতন চালিয়ে শিশুটিকে হত্যা করেছে বলেও অভিযোগ মায়ের।কিশোরী মারুফা আক্তার (১৪) চেয়ারম্যানের বাড়ির পাশের আলী আকবরের মেয়ে। গত দুই বছর পূর্বে এ বাসায় কাজ করতে আসে। কিশোরীর মা আকলিমা আক্তার চেয়ারম্যানের ছেলের ঢাকাস্থ বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করেন।মোহনগঞ্জ থানার ওসি মো. আব্দুল আহাদ খান বলেন, এমন কথা সত্য নয়। আমি অনেক আন্তরিক। মেয়ের মাকে আমরা আরো ডেকে এনেছি। লাশ নিয়ে ময়নাতদন্ত করতে দিয়েছি। লাশ দাফন করেই মামলা করতে বলা হয়েছিল

তবে হত্যা মামলায় চেয়ারম্যান একজনই। আসামি অন্যরা অজ্ঞাত বলে জানান ওসি। তিনি আরো বলেন, আমরা আসামিকে গ্রেফতারও করেছি। সেইসাথে মঙ্গলবার কোর্টে পাঠানো হয়েছিলো। পরবর্তীতে আমাদের কাছে কোনো অর্ডার আসেনি।নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) মো. একরামুল হাসান জানান, সকল আলামত রাখা হয়েছে। এছাড়া ডিএনএ টেস্ট হচ্ছে। সবগুলো রিপোর্ট আসলে বলা যাবে।

- Advertisement -

Latest news

হতাশ হয়ে পাকিস্তানে ফেরত যাচ্ছেন নাগরিকত্বের আশায় ভারতে আসা হিন্দু ও শিখরা!

আশাহত হয়ে পাকিস্তান ফিরে যাচ্ছেন মোদি সরকারের আমলে ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায় পাকিস্তান থেকে আসা হিন্দু ও শিখ শরণার্থীরা। করোনার কারণে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি ও...
- Advertisement -

যে গাছগুলোতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

যেসব গাছের এক বা একাধিক অংশ প্রাণীদের ক্ষেত্রে দরকারি ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয় তাকে ঔষধি গাছ বলে। গাছ যদি হয় বিভিন্ন রোগের ওষুধ, তখন...

হাজার কোটি টাকা দিলেও আর হিজাব ছাড়ব না : হালিমা ইডেন

ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে আপস করার জন্য চাপ অনুভব করার প্রেক্ষাপটে মুসলিম মডেল হালিমা ইডেন ফ্যাশন শো থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। বুধবার ২৩ বছর...

ধর্ষকদের শাস্তি পুরুষাঙ্গ অকেজো, ইমরান খানের অনুমোদন!

ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড এবং রাসায়ানিক প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ অকেজো (খোজাকরণ) করে দেয়ার বিধান রেখে দুটি অধ্যাদেশ অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ। মঙ্গলবার...

Related news

হতাশ হয়ে পাকিস্তানে ফেরত যাচ্ছেন নাগরিকত্বের আশায় ভারতে আসা হিন্দু ও শিখরা!

আশাহত হয়ে পাকিস্তান ফিরে যাচ্ছেন মোদি সরকারের আমলে ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায় পাকিস্তান থেকে আসা হিন্দু ও শিখ শরণার্থীরা। করোনার কারণে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি ও...

যে গাছগুলোতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

যেসব গাছের এক বা একাধিক অংশ প্রাণীদের ক্ষেত্রে দরকারি ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয় তাকে ঔষধি গাছ বলে। গাছ যদি হয় বিভিন্ন রোগের ওষুধ, তখন...

হাজার কোটি টাকা দিলেও আর হিজাব ছাড়ব না : হালিমা ইডেন

ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে আপস করার জন্য চাপ অনুভব করার প্রেক্ষাপটে মুসলিম মডেল হালিমা ইডেন ফ্যাশন শো থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। বুধবার ২৩ বছর...

ধর্ষকদের শাস্তি পুরুষাঙ্গ অকেজো, ইমরান খানের অনুমোদন!

ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড এবং রাসায়ানিক প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ অকেজো (খোজাকরণ) করে দেয়ার বিধান রেখে দুটি অধ্যাদেশ অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ। মঙ্গলবার...
- Advertisement -