করোনা যুদ্ধে শহীদ হওয়া সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিনের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দীন ছিলেন ভদ্র ও বিনয়ী। মানবিক ডাক্তার হিসেবে পরিচিত মঈন গরীব মানুষের ফি নিতেন না।
ডা. মঈন উদ্দীনের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার ধারনে। তিনি পরিবারসহ সিলেটের হাউজিং স্টেটে থাকতেন।
ঢাকা মেডিকেলের মেধাবি ছাত্র ড. মঈনকরোনা যুদ্ধে প্রথম সারির যোদ্ধা ছিলেন। দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হন তিনি। গত ৫ এপ্রিল তার করোনা পজিটিভ আসে। তখন থেকেই তার পরিবারসহ সিলেট নগরীর হাউজিং এস্ট্রেট এলাকা লকডাউনঘোষণা করা হয়। অবস্থায় অবনতি ঘটলে ৭ এপ্রিল ডা. মঈনকে নগরীর শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে করোনা ইউনিটে আইসোলেশনে নেওয়া হয়। সেখান থেকে পরবর্তীতে পরিবারের সিদ্বান্ত অনুযায়ী তাকে এ্যম্বুলেন্সযোগে দ্রুত ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়।
ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (১৫ এপ্রিল) সকাল পৌনে ৭টায় মারা যান ডা. মঈন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল।
কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিল আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আজ সকালে ডা. মঈন উদ্দীন আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা আনিসুর রহমান জানান, ডা. মঈন উদ্দীন আগে থেকেই ভেন্টিলেটরে ছিলেন। সংক্রমণ তার হার্টে ছড়িয়ে পড়েছিল। মঙ্গলবার রাত থেকে তার শরীর বেশি খারাপ করে। তিনি আরও জানান, সংক্রমণ বিধি মেনে ঢাকাতেই তার দাফন হবে।