সুনামগঞ্জের ছাতক পৌরসভার নাগরিকদের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা ও নাগরিকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ছাতক পৌর এলাকার ১০টি জনবহুল স্থানে হাত ধোয়ার বেসিন স্থাপন করা হয়েছে।

পৌরসভা সূত্রে জানা গেছে, শহরের পৌর পয়েন্ট, চাঁদনীরঘাট, পুরাতন কাস্টমস রোড, পেপার-মিল পয়েন্ট, নোয়ারাই বাজার, শিববাড়ি পয়েন্ট, পৌরসভা, উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স এলাকায় হাত ধোয়ার বেসিন স্থাপন করা হয়েছে। এসব বেসিনে একটি কাপড় কাচার ক্ষার যুক্ত সাবান, তোয়ালে দেয়া রয়েছে। পৌর পয়েন্ট উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্সসহ বেশ কয়েটি স্থানে সর্তকতামূলক সাইনবোর্ডসহ হাত ধোয়ার বেসিন স্থাপন করেছে।চার বারের নির্বাচিত পৌর মেয়র আবুল কালাম চৌধুরীর ব্যতিক্রমী উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন পৌরবাসী। তারা জানান, এ দুর্যোগের সময় সবাই নিজ নিজ নিরাপত্তায় সচেষ্ট হলেও পৌর মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী হাত ধোয়ার সাবান, হাত মোছার টাওয়েলসহ একটি সচেতনতামূলক সাইন বোর্ড দিয়ে নাগরিকদের সচেতন করছেন। এটি একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ।ছাতক সরকারি কলেজের ছাত্র ইয়াছিন মিয়া বলেন, সারাদেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে সবাই ভীত সন্ত্রস্ত। পৌর মেয়র নাগরিকদেরও সুরক্ষার জন্য হাত ধোয়ার বেসিন ও সর্তকর্তা মূলক সাইনবোর্ড স্থাপন করায় মানুষ হাত ধুতে পারছে এবং সাইন বোর্ডের লেখা পড়ে কিছুটা হলেও সচেতন হবে।কর্মজীবী নারী ফারজানা হোসেন বলেন, সব জনপ্রতিনিধি যদি এমন উদ্যোগ নিতেন তাহলে এ দুর্যোগের সময় মানুষ কিছুটা হলেও রক্ষা পেতো।ব্যবসায়ী আকিল মিয়া বলেন, ছাতক একটি প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা। এখানে বড় বড় শিল্প কারখানা রয়েছে। সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শত শত মানুষ চলাচল করেন। কারো হাত ধোয়ার প্রস্তুতি থাকে না। মেয়র এটি স্থাপন করায় মানুষ করোনা থেকে কিছু সময়ের জন্য হলেও নিরাপদ থাকবে।ছাতক পৌর সভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে নাগরিক সুরক্ষা দেয়ার জন্য তারা এ কার্যক্রম শুরু করেছেন। যতদিন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থাকবে ততদিন তারা হাত ধোয়ার সেবা দিয়ে যাবেন।ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গোলাম কবির জানান, শহরের গুরুত্বপূর্ণ জনবহুল এলাকায় হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করায় নাগরিকগণ অনেকটা সুরক্ষা পাবেন।