আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের তিন সপ্তাহের বেশি সময় পর নতুন সরকার গঠন করেছে তালেবান। অন্তর্বর্তীকালীন এই সরকারের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ। আর আলোচনায় থাকা মোল্লা আব্দুল গনি বারাদার হয়েছেন নতুন সরকারের উপপ্রধান। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

গতকাল মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ জানান, মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ তালেবান নেতৃত্বের ‘রেহবারি শুরা’র প্রধান। মন্ত্রীসভায় উপপ্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন আব্দুল গানি বারাদার। তিনি তালেবানের প্রতিষ্ঠাতাদের একজন।

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের সঙ্গে তালেবানের অন্তবর্তীকালীন সরকার প্রধান মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ। ছবি : এএফপি

এর আগে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোতে আফগানিস্তানের পরবর্তী সরকার প্রধান হিসেবে মোল্লা আব্দুল গনি বারাদারের নাম উঠে এসেছিল। তবে নতুন সরকারের প্রধান হননি তিনি। সরকারের উপপ্রধান হিসেবে আরও একজন দায়িত্ব পেয়েছেন। তিনি হলেন মোল্লা আব্দুল সেলাম হানফউ। নতুন সরকারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন সিরাজুদ্দিন হাক্কানী। তিনি জঙ্গিগোষ্ঠী হাক্কানি নেটওয়ার্কের প্রধান।

তালেবান নেতা আমির খান মুত্তাকিকে করা হয়েছে পররাষ্ট্রমন্ত্রী। আর তালেবানের রাজনৈতিক প্রধান শের মোহাম্মদ আব্বাস স্তানিকজাই হচ্ছেন উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী। হেদায়েতউল্লাহ বদরি ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করবেন। এ ছাড়া তালেবান সরকারের প্রতিরক্ষামন্ত্রী হয়েছেন মোল্লা ইয়াকুব। তার ডেপুটি থাকবেন মোল্লা আবদুল সালাম হানাফি।

জাবিউল্লাহ মুজাহিদ জানান, নতুন সরকারের প্রথম কাজগুলোর মধ্যে থাকবে অর্থনীতিকে স্থিতিশীল করা, আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাওয়া এবং দেশটিতে ক্রমবর্ধমান মানবিক সংকট মোকাবেলা করা।