খতীবে বাঙ্গাল আল্লামা জুনায়েদ আল হাবীব।

চলমান২৪ : আন্তর্জাতিক মুফাসসিরে কুরআন, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও গবেষক, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি,হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব, খতীবে বাঙ্গাল আল্লামা জুনায়েদ আল হাবীব এক বিবৃতিতে একথা বলেন।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস, বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলোকে মোকাবেলা করতে হয়েছে। আমাদের দেশে কয়েকদিন যাবত লকডান দিয়ে সবকিছু বন্ধ রাখা হয়েছে। লোক সমাগম হলেই করোনা আক্রান্ত হয়ে যাবে এই অযুহাতে অফিস-আদালত, শিল্প, কল-কারখানা, নির্মান, উন্নয়ন, হোটেল, রেষ্টুরেন্ট, মার্কেট, দোকান, চলাফেরার রাস্তাঘাট, সভা-সমাবেশ, ওয়াজ মাহফিল, নামাজের জামাত সহ সবকিছু বন্ধ ঘোষণা করলেও গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতনের দাবীতে মিছিল, গরীব ও দিন মজুর ত্রাণের দাবীতে মিছিল, টিছিবির মাল ক্রয়ে সমাগম, হাট বাজারে লোক সমাগম ইত্যাদি কিছুই কন্ট্রোল করতে পারে নাই।

খতীবে বাঙ্গাল বলেন, এসকল উপস্থিতির কারণে ক্রেতা এবং বিক্রেতা পার্শ্ববর্তী এলাকায় লোকসমাগম হলেই যে সংক্রমন হবে, এর কোন লক্ষণ পরিলক্ষিত হচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, আমাদের সমাজে এখনও যারা মসজিদে নামাজের জামাতে উপস্থিতির মাঝেই শুধুমাত্র করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন! তাদের উপলব্ধির জন্য বলতে চাই যে, বিগত দিনগুলোতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী প্রত্যেকটি লাশ যে আলেম সমাজ সামান্য প্রটেকশনে দেশের সর্বত্র কাফন-দাফন করে যাচ্ছেন, তাদের একজনও কিন্তু এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হননি। কারণ, তাঁরা নিজেদের মধ্যে যে আল্লহর উপর আস্থা ও বিশ্বাসটুকু ধারণ করে আছেন, সেটাই তাঁদেরকে এই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থাতেও সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছেন।

আল্লামা আল হাবীব বলেন,আজ এই পবিত্র মাহে রমযানে যাদের হৃদয় মসজিদে উপস্থিত হওয়ার জন্য সর্বাবস্থায় ক্রন্দন করছে, সরকারের উচিৎ তাদের জন্য সেই সুযোগটুকু সৃষ্টি করে দেয়া। অন্যথায় তাদের এই আহাজারী আমাদের দেশের জন্য আরো কঠিন পরিস্থিতি এনে দিতে পারে।

তিনি বলেন, অতিসম্প্রতি দেশের অর্থনীতি সচল রাখতে চলমান লকডাউনের মধ্যেও শিল্প-কারখানা খুলে দেয়া হয়েছে। ঠিক তেমনি এই অর্থনীতির সুফলভোগী মানুষের নিয়ন্ত্রণ যে সত্ত্বার হাতে রয়েছে, সেই সত্ত্বার দরবারে উপস্থিতি আমাদের জন্য আরো অধিক গুরুত্বপূর্ণ।
অতএব আর একমুহুর্ত বিলম্ব না করে, পাচ ওয়াক্ত নামাজ, জুমা, তারাবিহ ও এবাদতের জন্য সকল মসজিদ উন্মুক্ত করে দেওয়া হোক।